শুক্রবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ || সময়- ২:৫১ am

চীনা পণ্যের আগ্রাসন

বাজার ভরা চীনাপণ্য! বাজারগুলো মাতাতে,

কত বুদ্ধি লুকিয়ে আছে চীনাদের মাথাতে!

আজগুবি সব জিনিস গড়ে

দেশে দেশে বাজার ধরে

বড় বেশি ওস্তাদ ওরা বিদেশি মুদ্রা হাতাতে;

----------------------------

মোঃনজরুল ইসলাম।।পুলিশ চীনের একটি কারখানা তল্লাশি চালিয়ে অন্তত ৪০ হাজার নকল আইফোন জব্দ করে। যার দাম ছিল অন্তত এক কোটি ৯০ লাখ ডলার।এবার আসা যাক নকল ব্যাগ প্রসঙ্গে। হাই-এন্ড কপি। এসব ব্যাগ হুবহু আসলের মতো। দেখে ধরার জো নেই। একই লোগো। অবিকল ডিজাইন। অনবদ্য ওয়ার্কম্যানশিপ আর চমৎকার মেটেরিয়াল।আবার এক ধরনের ব্যাগ আছে যেগুলোর লোগো ও ডিজাইন এক। তবে উপাদান নিম্নমানের।জুতো, স্পোর্টস শুজ আর ক্লোদের ক্ষেত্রেও একই ব্যাপার। সবচেয়ে বেশি নকল হয় নাইকি, অ্যাডিডাস, নিউ বালান্স আর কনভার্স। জুতা নকলের ট্রেন্ড শুরু হয়েছে আশির দশক থেকে। বিদেশি ব্র্যান্ডগুলো সস্তাশ্রমের লোভে চীনে এসে তাদের প্রোডাক্ট আউটসোর্স করা আরম্ভ করে।অনলাইন স্টোর ইবে জানায় যে তাদের ওয়েবসাইটে বিক্রীত ৯০ ভাগ নাইকির জুতাই নকল।আর প্রসাধনের ক্ষেত্রে তথ্য হচ্ছে, চীনের বাজারে বিক্রীত কম করে ২০ শতাংশই নকল। অন্য প্রোডাক্টের মতো এসব প্রোডাক্টের প্যাকেজিংটা করা হয় অবিকল।বিগত ২০ বছর ধরে চীন নকল সামগ্রী তৈরিতে দারুণ মুনশিয়ানা দেখিয়ে চলেছে। নকলশিল্পের বার্ষিক আয়ও মন্দ নয়। 

আর্কাইভ